add

ঢাকা, শুক্রবার, ১৪ জুন ২০২৪, ৩১ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১

রপ্তানি বাড়াতে আঞ্চলিক সুযোগ কাজে লাগাতে হবে

সরোবর প্রতিবেদক  

 প্রকাশিত: মে ১৪, ২০২৪, ০৭:৩৩ বিকাল  

বাংলাদেশের রপ্তানি বাড়াতে আঞ্চলিক সুযোগ কাজে লাগাতে হবে বলে জানিয়েছেন ব্যবসায়ীরা।

মঙ্গলবার এফবিসিসিআই কার্যালয়ে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে এসব কথা উঠে আসে। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন বাণিজ্য প্রতিমন্ত্রী আহসানুল ইসলাম টিটু। সভাপতিত্ব করেন ব্যবসায়ীদের শীর্ষ সংগঠন এফবিসিসিআই সভাপতি মাহবুবুল আলম।

অনুষ্ঠানে প্রাণ-আরএফএল গ্রুপের চেয়ারম্যান ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) আহসান খান চৌধুরী বলেছেন, দেশের সম্ভাবনা উজ্জ্বল। এখন আমাদের রপ্তানি বাড়াতে আঞ্চলিক সুযোগ কাজে লাগাতে হবে। জার্মানি-ভারতসহ অন্যান্য দেশে ব্যবসা বাড়াতে উদ্যোগ নিতে হবে।

তিনি বলেন, জার্মানিতে আমাদের দেশের (পণ্য রপ্তানির) সম্ভাবনা রয়েছে। সেখানে বাংলাদেশের সম্ভাবনা উজ্জ্বল। তাদের সঙ্গে শুধু পোশাক নয়, অন্যান্য পণ্য রপ্তানির সম্ভাবনাও রয়েছে। এক্ষেত্রে সরকারের সঙ্গে ব্যবসায়ীদের উদ্যোগ কাজে লাগাতে হবে। এ বিষয়ে সরকারকে আরো উদ্যোগী হতে হবে।

আহসান খান চৌধুরী বলেন, আমাদের বিএসটিআইয়ের সক্ষমতা বাড়াতে হবে, তাদের লাইসেন্স ক্যাপাসিটিও ডেভেলপ করা প্রয়োজন।

রানা প্লাজার দুর্ঘটনার বিষয়ে তিনি বলেন, পোশাকশিল্পে মর্মান্তিক দুর্ঘটনা রানা প্লাজার ঘটনার পর শুধু পোশাক খাতের উন্নয়ন হয়নি, এর সঙ্গে আমাদের খাদ্য প্রক্রিয়াজাতসহ অন্যান্য শিল্পও এগিয়েছে।

বাণিজ্য প্রতিমন্ত্রী আহসানুল ইসলাম টিটু বলেন, আমাদের দেশের উদ্যোক্তারা সফল হলে দেশ স্বাবলম্বী হবে। আমরা উদ্যোক্তাদের জন্য দায়িত্ব নিয়ে কাজ করছি। একসময় আমদানিকে গুরুত্ব দেওয়া হতো। এখন আমদানি-রপ্তানি দুটোকেই সমান গুরুত্ব দেওয়া হয়। আমাদের রপ্তানিতে যেমন পণ্যের বৈচিত্র্য এসেছে, তেমনই আমদানিতে আমরা বিভিন্ন দেশকে বেছে নিতে পারছি।

বাংলাদেশ বিনিয়োগ উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের (বিডা) চেয়ারম্যান লুকমান হোসেন মিয়া বলেন, আমরা জার্মানির ব্যবসায়ীদের এদেশে বিনিয়োগের আহ্বান জানাই। বিডার পক্ষ থেকে সব বিনিয়োগকারীকে সহযোগিতা করা হবে। কোনো সমস্যা থাকলে দ্রুত সময়ে সমাধানে উদ্যোগ নেওয়া হবে।

তিনি বলেন, ব্যবসা বা বিনিয়োগে এখন ট্রাক-রিকশা ভর্তি করে কাগজ নিয়ে দপ্তরে দপ্তরে ঘোরার দিন শেষ। এখন আপনারা বিডায় আবেদন করুন। এক আবেদনে ১২৫ সেবা মিলবে আমাদের এখানে। বিডা প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের অধীনে হওয়ায় বিভিন্ন সংস্থার সঙ্গে আমি কথা বলি, তারা গুরুত্বসহ শোনেন, সমাধান করে থাকেন।

দৈনিক সরোবর/এএস