add

ঢাকা, রবিবার, ১৬ জুন ২০২৪, ২ আষাঢ় ১৪৩১

শেখ হাসিনাকে হত্যার হুমকি: রাজনীতিতে নতুন শংকা

সম্পাদকের কলম

 প্রকাশিত: মে ২৩, ২০২৩, ০৭:৪৭ বিকাল  

ফাইল ফটো

রাজশাহীতে বিএনপির সমাবেশে বিএনপি নেতা আবু সাঈদ চাঁদ বঙ্গবন্ধুকন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে হত্যার হুমকি দেওয়ার ঘটনায় চারিদিকে নিন্দার ঝড় উঠেছে। এর প্রতিবাদে দেশব্যাপী আওয়ামী লীগ সোমবার (২২ মে) সমাবেশ করেছে। দেশের প্রধানমন্ত্রীকে হত্যার হুমকি দেওয়ার ঘটনায় আমরা তীব্র নিন্দা জানাই। 

দেশের প্রধানমন্ত্রীকে হত্যার হুমকির দেওয়ার মধ্যদিয়ে আগামীতে দেশের রাজনীতির পরিস্থিতি কোথায় যাচ্ছে, তা নিয়ে মানুষ শংকিত। এ ধরনের বক্তব্য দেওয়ার জন্য বিএনপির পক্ষ থেকে এখন পযন্ত ক্ষমা চাওয়ার ঘটনা ঘটেনি। 

বিএনপির বিভিন্ন দাবি এখন এক দফায় এসে দাঁড়িয়েছে। এ দফা বাস্তবায়নে দলটি ও শরীকরা মাঠে রাজনৈতিক কর্মসূচি পালন করছে। তার মধ্যে রাজশাহীতে বিএনপি নেতা আবু সাঈদ চাঁদ বঙ্গবন্ধুকন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে হত্যা করে কবরস্থানে পাঠানোর যে হুমকি দিয়েছেন, তা হালকা করে দেখার সুযোগ নেই। এটা বিএনপির মনের কথা কিনা তা ভেবে অনেকে বেশিভাবে শংকিত। 

বিএনপি সরকার পতনের এক দফা দাবি জানিয়ে বলছে, এটা নতুন ধরনের আন্দোলন হবে। তার নজির হিসেবে শুক্রবার (১৯ মে) দেশের বিভিন্নস্থানে বিএনপি সামাবেশ করে, তার মধ্যে রাজশাহীও ছিলো। 

রাজশাহীতে বিএনপি নেতা আবু সাঈদ চাঁদ, বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতাদের উপস্থিতিতে প্রধানমন্ত্রীকে হত্যার হুমকি দিয়েছেন। 

শুক্রবার (১৯ মে) সরকারের পদত্যাগ, গায়েবি মামলা ও গণগ্রেপ্তার বন্ধ, সরকারের দুর্নীতির প্রতিবাদ ও ১০ দফা দাবিতে রাজশাহীতে বিএনপির সমাবেশ হয়। সমাবেশে জেলা বিএনপির আহ্বায়ক আবু সাঈদ চাঁদ বলেন, আর ২৭ দফা, ১০ দফা নাই। এক দফা শেখ হাসিনাকে কবরস্থানে পাঠাতে হবে এবং শেখ হাসিনাকে পদত্যাগ করতে যা যা করার দরকার আমরা তা করব। আবু সাইদ চাঁদের সভাপতিত্বে সমাবেশে প্রধান অতিথি ছিলেন বিএনপির স্থায়ী কমিটি সদস্য ও সাবেক মন্ত্রী সেলিমা রহমান এবং প্রধান বক্তা ছিলেন চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা ও সাবেক রাসিক মেয়র মিজানুর রহমান মিনু। এতে বিশেষ অতিথি ছিলেন দলের জাতীয় নির্বাহী কমিটির বন ও পরিবেশবিষয়ক সম্পাদক এবং সাবেক রাসিক মেয়র মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুল প্রমুখ।

এদিকে আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনের আর কয়েক মাস বাকি আছে। বিএনপি সংবিধান অনুসারে নির্বাচনে না গিয়ে অনির্বাচিত সরকারের অধীনে নির্বাচনের দাবিতে এক দফা বাস্তবায়নে মাঠে নেমেছে। এতে দলটি কতটা সফল হবে তা নিয়ে যথেষ্ট সন্দেহ আছে। 

বিএনপির এক দফা  কি দেশকে উত্তপ্ত অবস্থার দিকে টেনে নিয়ে যায় কি-না তা ভেবে অনেকে শংকিত। এই শঙ্কা বাড়িয়েছে, ঢাকায় যুক্তরাষ্ট্রের র্দুতাবাস জারিকৃত একটি বিবৃতি। এতে বলা হয়েছে যে, বাংলাদেশের আসন্ন জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে ঢাকাসহ সারা দেশে যুক্তরাষ্ট্রের নাগরিকদের সতর্কতার সঙ্গে চলাফেরার পরামর্শ দিয়েছে ঢাকায় দেশটির দূতাবাস। রবিবার (২১ মে) মার্কিন দূতাবাসের ‘ডেমোনস্ট্রেশন অ্যালার্ট’ শিরোনামে প্রচারিত হালনাগাদ করা ভ্রমণ সতর্কবার্তায় এ পরামর্শ দেওয়া হয়েছে। এতে বলা হয়েছে, মার্কিন নাগরিকদের জন্য জারি করা ওই সতর্কতা ঢাকা এবং বাংলাদেশের অন্য শহরগুলোর জন্যও প্রযোজ্য হবে। 

বিএনপি অনির্বাচিত সরকার বা তত্ত্বাধায়ক সরকারের অধীনে ছাড়া নির্বাচনে অংশ নেবে না। এই দাবির পক্ষে দাঁড়াতে গিয়ে রাজশাহীতে বিএনপির জনসভায় বিএনপি নেতা বঙ্গবন্ধুকন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে হত্যার হুমকি দিয়ে যে সমালোচনার সৃষ্টি করেছে তাতে পরিবেশ আরো জটিল হয়ে উঠেছে। সামনের দিনগুলোতে দেশের অবস্থা কতটা নাজুক অবস্থায় ঠেকে তা এখনই অবশ্য পুরোপুরি বলার সময় আসেনি। যুক্তরাষ্ট্রের বিবৃতি জারিকে অবজ্ঞা করারও কোনও সুযোগ নেই। 

আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে কেন্দ্র করে মাটের পরিস্থিতি ভিন্ন দিকে মোড় নেওয়া অস্বাভাবিক কিছু নয়। এব্যাপারে সরকারসহ সব পক্ষকেই সতর্ক থাকা দরকার।

দৈনিক সরোবর/ আরএস