ঢাকা, শুক্রবার, ০৩ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ২০ মাঘ ১৪২৯

রুদ্ধশ্বাস লড়াইয়ে শেষ হাসি মাশরাফির সিলেটের

ক্রীড়া প্রতিবেদক

 প্রকাশিত: জানুয়ারী ২৪, ২০২৩, ০৫:৩৮ বিকাল  

বিপিএলের নবম আসরে ঢাকায় চলছে দ্বিতীয় পর্বের খেলার শেষ দিনের প্রথম ম্যাচে মুখোমুখি হয়েছিল ফরচুন বরিশাল ও সিলেট স্ট্রাইকার্স। উত্তেজনার ম্যাচে শেষ পর্যন্ত স্নায়ুর লড়াইয়ে জিতেছে মাশরাফির সিলেট।

মিরপুর শেরে বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে আগে ব্যাট করে পাঁচ উইকেটে ১৭৩ রান সংগ্রহ করেছিল সিলেট। জবাবে নির্ধারিত ২০ ওভারে ৮ উইকেটে ১৭১ রানের বেশি করতে পারেনি বরিশাল। সিলেটের জয় ২ রানে।

শেষ ওভারে বরিশালের প্রয়োজন ছিল ১৫ রান। রেজাউর রাজার প্রথম বলই ওয়াইড করেন। পরের বলেই আউট হন ইফতিখার আহমেদ। দ্বিতীয় ডেলিভারিতে রান আউট হন মিরাজ।

দুই বলে ১৩ প্রয়োজন, এমন সময় ছক্কা হাঁকান মোহাম্মদ ওয়াসিম। টানটান উত্তেজনার মাঝে শেষ বলে চার হাঁকান তিনি। ফলে ২ রানের রুদ্ধশ্বাস জয় পায় সিলেট।

বরিশালের হয়ে রান তাড়া করতে নেমে উদ্বোধনী জুটিতে ভালো সূচনা এনে দেন সাইফ হাসান। দলীয় ৪২ রানে সাজঘরে ফেরার আগে ৩১ রান করেন তিনি। এদিন আনামুল হক বিজয় ৩ রানের বেশি করতে পারেননি।

তৃতীয় উইকেটে ৬১ রান যোগ করেন ইব্রাহিম জাদরান ও সাকিব। আউট হওয়ার আগে তারা যথাক্রমে ৪২ ও ২৯ রান করেন। করিম জানাত ২১ ও মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ খেলেন ৭ রানের ইনিংস।

বাকি সময়ে কেউই বরিশালকে জয়ের বন্দরে নিতে পারেননি। সিলেটের হয়ে রেজাউর রহমান রাজা তিনটি এবং তানজিম হাসান সাকিব ও মোহাম্মদ আমির দুটি করে উইকেট শিকার করেন।

এর আগে টস জিতে ফিল্ডিং করার সিদ্ধান্ত নেন বরিশাল অধিনায়ক সাকিব আল হাসান। বল হাতে বরিশালের শুরু দেখে সাকিবের সিদ্ধান্তই সঠিক মনে হচ্ছিল। যেখানে মাত্র ১৫ রানের মাঝে তিন উইকেট হারায় সিলেট।

জাকির হাসান ও মুশফিকুর রহিম এদিন রানের খাতাই খুলতে পারেননি। এছাড়া ইনফর্ম ব্যাটার তৌহিদ হৃদয় মাত্র ৪ রানে আউট হন। তিনজনকেই ফেরান মোহাম্মদ ওয়াসিম জুনিয়র।

এ অবস্থায় দলের হাল ধরেন নাজমুল হোসেন শান্ত ও টম মুরেস। উইকেট না হারিয়ে পাল্টা আক্রমণে রানের চাকা সচল রাখেন তারা। বিচ্ছিন্ন হওয়ার আগে চতুর্থ উইকেটে ৮১ রান যোগ করেন মুরেস ও শান্ত।

সাকিবের বলে আউট হওয়ার আগে ৪০ রান করেন মুরেস। বাকি সময়ে শেরে বাংলায় ঝড় তোলেন শান্ত ও পেরেরা। দুজনের ব্যাটে সিলেটের সংগ্রহ বাড়তে থাকে দ্রুতগতিতে।

শেষ ওভারে ২১ রানে পেরেরা আউট হলে ভাঙে শান্তর সঙ্গে তার ৬৮ রানের জুটি। একপ্রান্ত আগলে রেখে অনবদ্য ইনিংস উপহার দেওয়া শান্ত অপরাজিত থাকেন ৮৯ রানে।

দৈনিক সরোবর/ আরএস