add

ঢাকা, রবিবার, ১৪ জুলাই ২০২৪, ৩০ আষাঢ় ১৪৩১

‘মায়ের জন্য হাজারো চাকরি ছাড়তে পারি’ কঙ্গনাকে চড় মারা সেই কনস্টেবল

বিনোদন ডেস্ক

 প্রকাশিত: জুন ০৮, ২০২৪, ০২:৪৯ দুপুর  

কঙ্গনাকে চড় মারা সেই নারী কনস্টেবল কুলবিন্দর কৌর এক্সে এক পোস্টে লিখেছে, চাকরির পরোয়া করি না। মায়ের সম্মান রক্ষায় এমন হাজারো চাকরি ছাড়তে পারি। খবর ভারতীয় গণমাধ্যম এনডিটিভির।

বলিউড তারকা ও লোকসভায় ভারতীয় জনতা পার্টির (বিজেপি) নবনির্বাচিত সংসদ সদস্য কঙ্গনাকে চড় মারার জেরে এরই মধ্যে সাময়িক বরখাস্ত এবং গ্রেফতার করা হয়েছে সেন্ট্রাল ইন্ডাস্ট্রিয়াল সিকিউরিটি ফোর্সের (সিআইএসএফ) কনস্টেবল কুলবিন্দরকে।

এনডিটিভি জানায়, কৃষক আন্দোলনে অংশ নেওয়াদের অপমান করে বক্তব্য দেওয়ার কারণেই কঙ্গনাকে চড় মেরেছিলেন কুলবিন্দর।

সদ্য সমাপ্ত লোকসভা নির্বাচনে হিমাচল প্রদেশের মান্ডি আসন থেকে বিজেপির টিকিটে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়েছেন বলিউড অভিনেত্রী কঙ্গনা। বৃহস্পতিবার চন্ডীগড় বিমানবন্দরে দিল্লির ফ্লাইটের জন্য অপেক্ষা করার সময় তাকে চড় মারার ওই ঘটনা ঘটে। এর কয়েক ঘণ্টার মধ্যেই কুলবিন্দরকে বরখাস্ত করে ঘটনা তদন্তের নির্দেশ দেওয়া হয়। শুক্রবার সকালে গ্রেফতার করা হয় কুলবিন্দরকে।

বৃহস্পতিবার ঘটনাটির ভিডিও অনলাইনে ছড়িয়ে পড়ার পর পাঞ্জাবের বাসিন্দা কুলবিন্দর বলেন, ২০২০ সালে মোদী সরকারের কৃষি আইনের বিরুদ্ধে চলমান কৃষক আন্দোলন নিয়ে বেশকিছু মন্তব্য করেছিলেন কঙ্গনা। এ কারণে তার ওপর ক্ষুব্ধ ছিলেন তিনি। এই ক্ষোভ থেকেই তিনি কঙ্গনাকে চড় মারেন।

কুলবিন্দর আরো বলেন, কঙ্গনা একটি মন্তব্য করেছিলেন- কৃষকরা ১০০ টাকার বিনিময়ে সেখানে বসে রয়েছেন। তিনি কি সেখানে গিয়ে বসে থাকবেন? তিনি যখন এ সব বলেছিলেন, তখন আমার মা সেখানে গিয়ে বসে প্রতিবাদ করছিলেন।

এক ভিডিও বার্তায় কঙ্গনা বলেন, তিনি সংবাদমাধ্যম ও শুভানুধ্যায়ীদের অনেকের কাছ থেকে প্রচুর ফোন পাচ্ছেন। ওই নারী কনস্টেবল আমার দিকে এগিয়ে এসে মুখে আঘাত করেন এবং আমাকে নিপীড়ন করতে শুরু করেন। কারণ জিজ্ঞাসা করতে তিনি (নারী কনস্টেবল) বলেন, যে তিনি কৃষক আন্দোলন সমর্থন করেন।’

কঙ্গনা আরো বলেন, ‘আমি নিরাপদ আছি। কিন্তু আমি উদ্বিগ্ন যে পাঞ্জাবে সন্ত্রাস বাড়ছে ‍ৃকীভাবে আমরা এটা সামলাব?’

দৈনিক সরোবর/এসএস