ঢাকা, শুক্রবার, ০৩ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ২০ মাঘ ১৪২৯

২৫ হাজার টাকার জন্য গরিবেরা জেলে, ঋণখেলাপিরা আরামে

সরোবর ডেস্ক 

 প্রকাশিত: নভেম্বর ২৬, ২০২২, ০৮:০৬ রাত  

ঈশ্বরদীতে ২৫ থেকে ৩০ হাজার টাকা ঋণ নিয়ে ফেরত না দেওয়ার অভিযোগে ১২ কৃষককে কারাগারে পাঠানোর ঘটনাকে অন্যায় ও বৈষম্য বলে আখ্যায়িত করেছেন সাবেক ডাক ও টেলিযোগাযোগ প্রতিমন্ত্রী তারানা হালিম।

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে নিজের ভেরিফায়েড পেজে তারানা হালিম লিখেছেন, সমবায় ব্যাংকের ২৫ হাজার টাকার খেলাপি ঋণের মামলায় গরিবেরা জেলে যায়। আর ২৫ হাজার কোটি টাকার ঋণখেলাপিরা আরামে ঘুমায়। 

পোস্টে গ্রেপ্তার হওয়া কৃষকদের মুক্তির জোর দাবি জানিয়েছেন তারানা হালিম । তিনি লেখেন, প্রয়োজনে ওই ২৫ হাজার টাকা আমরা দিয়ে দেব।

উল্লেখ্য, পাবনার ঈশ্বরদীতে ২৫ হাজার টাকা ঋণ পরিশোধ না করায় ৩৭ কৃষকের নামে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করা হয়েছে। গত বুধবার (২৩ নভেম্বর) পাবনার সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালত এই পরোয়ানা জারি করেন। শুক্রবার (২৫ নভেম্বর) দুপুর পর্যন্ত পরোয়ানাভুক্ত ১২ জনকে পুলিশ গ্রেপ্তার করেছে। 

গ্রেপ্তাররা হলেন- উপজেলার ছলিমপুর ইউনিয়নের ভাড়ইমারি গ্রামের শুকুর প্রামানিকের ছেলে আলম প্রামানিক (৫০), মনি মন্ডলের ছেলে মাহাতাব মন্ডল (৪৫), মৃত কোরবান আলীর ছেলে কিতাব আলী (৫০), হারেজ মিয়ার ছেলে হান্নান মিয়া (৪৩), মৃত আবুল হোসেনের ছেলে মোহাম্মদ মজনু (৪০), মৃত আখের উদ্দিনের ছেলে মোহাম্মদ আতিয়ার রহমান (৫০), মৃত সোবহান মন্ডলের ছেলে আব্দুল গণি মন্ডল (৫০), কামাল প্রামানিকের ছেলে শামীম হোসেন (৪৫), মৃত আয়েজ উদ্দিনের ছেলে সামাদ প্রামানিক (৪৩), মৃত সামির উদ্দিনের ছেলে নূর বক্স (৪৫), রিয়াজ উদ্দিনের ছেলে মোহাম্মদ আকরাম (৪৬) ও লালু খাঁর ছেলে মোহাম্মদ রজব আলী (৪০)।